নাসা-য় ইন্টারনেটের গতি আসলে কত?

হ্যাঁ, ভুল শোনেন নি। আমেরিকার প্রতিটি বাসা এবং অফিসে ইন্টারনেটের গড় গতি হচ্ছে ৬.৭ মেগাবিট। কিন্তু আমেরিকার জাতীয় মহাকাশ গবেষনা সংস্থা (নাসা) এর ইন্টারনেটের গতি তাদের অপিস বা বাসার ইন্টারনেটের গতি থেকেও প্রায় ১৪ হাজার গুন বেশী! প্রায় প্রতি সেকেন্ডে ৯১ গিগাবিট!

নাসা

এটি মূলতঃ কোন গড়পড়তা ইন্টারনেট সংযোগ নয়, আসলে এটি হচ্ছে একটি নির্দিষ্ট স্থান থেকে আরেকটি নির্দিষ্ট স্থানে খুব বড় সাইজের ফাইল এবং সুবিশাল তথ্য আদান প্রদানের জন্য বিশেষায়িত নেটওয়ার্ক পদ্ধতি। এই নেটওয়ার্কটির নাম ইএসনেট (ESnet)। এটি একটি অতি উচ্চক্ষমতাসম্পন্ন সরকারী নেটওয়ার্ক, যেটাকে বানানো হয়েছে শুধুমাত্র গবেষনামূলক প্রয়োজনে ব্যবহারের জন্য। এটির সাথে সারা বিশ্বের বেশ কয়েকটি গবেষনা প্রতিষ্ঠান এবং সংস্থা সংযুক্ত, এবং এর সর্বোচ্চ গতি হচ্ছে প্রতি সেকেন্ডে ১০০ গিগাবিটস।

নাসা

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, মহাকাশ নিয়ে গবেষনা করার জন্য ১৯৫৮ সালে আমেরিকান তৎকালীন সরকার নাসা প্রতিষ্ঠা করে। তারপর থেকে এটি পৃথিবীর সেরা মহাকাশ গবেষনা প্রতিষ্ঠান। নাসা প্রতি বছরই মহাকাশ গবেষনা ও পদার্থবিজ্ঞানে অভূতপূর্ব সব সাফল্য ও আবিস্কার ঘটিয়ে যাচ্ছে। আমেরিকার সরকার গত বছর প্রায় সাড়ে ১৮ বিলিয়ন ডলার নাসার জন্য বরাদ্দ করে রেখেছিলো। এবং গত কয়েক দশক ধরে বাজেটের অংকটা এর আশে পাশেই ছিলো। পৃথিবীর যতগুলো দেশ গবেষনাখাতে সবচাইতে বেশী ব্যয় করে, তার ভেতর আমেরিকা সবার উপরের সারির একটি দেশ এবং এই দেশটির মোট বৈজ্ঞানিক গবেষনার বাজেটের প্রায় ৩৫%ই বরাদ্দ থাকে শুধুমাত্র নাসার জন্য।  (সূত্রঃ উইকিপিডিয়া।)